Loading...

Blog Head Ads

ইলুমিনাতির উৎপত্তি | কিভাবে এলো গুপ্ত সংগঠন ইলুমিনাতি | Illuminati: History of The Secret Society in Bangla

illuminati symbol


পৃথিবীর বিভিন্ন গোপন সংগঠনগুলোর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত ও সমালোচিত সংগঠনটির নাম ইলুমিনাতি (Illuminati)। ধারণা করা হয় মাইকেল জ্যাকসন থেকে শুরু করে অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, বিল গেটস থেকে শুরু করে বারাক ওবামা ও ইন্ডিয়ার বড় বড় কোম্পানির মালিক এবং জিও (Jio) কোম্পানির মালিক মুকেশ আম্বানি থেকে শুরু করে শাহরুখ খান সহ পৃথিবীর সবচেয়ে প্রভাবশালী ও জনপ্রিয় অসংখ্য ব্যক্তি’ই ইলুমিনাতির সদস্য, তাই ইলুমিনাতি কি এবং কিভাবে এই ইলুমিনাতির উৎপত্তি হয়েছিল এই সকল প্রশ্নের উত্তর নিয়েই থাকছে আমাদের আজকের এই আয়োজন।



illuminati eye in a wall

রহস্যেভরা সংগঠন ইলুমিনাতির যাত্রা শুরু হয়েছিল জার্মানির বাভারিয়া (Bavaria) প্রদেশে। ১৭৭৬ সালে জার্মানের এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক যার নাম অ্যাডাম ওআইশুপট (Adam Weishaupt)-এর দ্বারা এই গোপন সংগঠনের যাত্রা শুরু। তার এই ইলুমিনাতি প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশ্য ছিল সমাজ থেকে কুসংস্কারকে দূরকরা এবং জনজীবনে ধর্মীয় ও রাষ্ট্রীয় প্রভাব কমানো। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অ্যাডাম প্রথমে তার ৪জন ছাত্রকে নিয়ে এই সংগঠনের যাত্রা শুরু করে এবং ইলুমিনাতির সদস্যদের পরিচয় গোপন রাখতে এর প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডাম তার সকল সদস্যের আলাদা আলাদা ছদ্মনাম ঠিক করে আর নিজের ছদ্মনাম রাখে স্পার্টাকাস (Spartacus)।

১৭৮৪ সালে ইলুমিনাতির সদস্য সংখ্যা হয়েদ্বারায় ৬৫০জন তবে অ্যাডাম এই গোপন সংগঠনের কথা স্বভাবতই গোপন রাখতে চেয়েছিলেন, কিন্তু সদস্য সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় ইলুমিনাতির কথা আর গোপন থাকেনি।

১৭৮৫ সালে বাভারিয়ার শাসক চার্লস থিওডোর (Charles Theodore) সকল ধরনের গোপন সংগঠন নিষিদ্ধ করে, তখন ইলুমিনাতির প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডাম ফ্রান্স-এ পালিয়ে যায় আর সেসাথে ইলুমিনাতির অনেক গোপন নথিপত্র জব্দ করা হয়।

পরবর্তীকালে ১৭৯৮ সালে জন্স রবিনসন (Jones Robinson) প্রুফ অব এ কন্সপিরেসি (Proofs of a Conspiracy) নামে একটি বই প্রকাশ করে। এই বইটিতে তিনি ফরাসি বিপ্লবের পেছনে ইলুমিনাতির জোরালো প্রভাব আছে বলে দাবি করেন আর বিশেষ করে তারপর থেকেই এই ইলুমিনাতি নিয়ে অনেকের মুখে অনেক ধরণের রহস্যে ঘেড়া কথাবার্তা শোনাযায়।

বর্তমানে ইলুমিনাতি নিয়ে লেখা হয়েছে অনেক ধরণের অনেক বই আর সেসাথে বহু সংগঠন তাদেরকে ইলুমিনাতি হিসেবেও দাবি করে, তবে এরা কোন ধরনের গোপনীয়তার ধার ধারে না, এমনকি তাদের সংগঠন নিয়ে রয়েছে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট, ফেসবুক এবং টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ফ্যান পেজ ও ওয়েব পেজ যা দ্বারা তারা সদস্য সংগ্রহের জন্য রীতিমতো বিজ্ঞাপন দিয়েই থাকে। তবে এদের সাথে আসল ইলুমিনাতির কোন সম্পর্ক রয়েছে কিনা তা নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই।

আশাকরি ইলুমিনাতির উৎপত্তি ও রহস্য সম্পর্কে আপনাদেরকে ভাল কিছু তথ্য দিতে পেরেছি। ইলুমিনাতি সম্পর্কে আমাদের আজকের আয়োজন আপনার কেমন লাগলো তা আমাদেরকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন এবং পোষ্টটি ভাল লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন, ধন্যবাদ।

No comments:

Powered by Blogger.