Loading...

Blog head ads

অন্ধকারের গতি...? What Is The Speed of Dark in Bangla

অন্ধকার, Dark Image


আজকে আমাদের আয়োজনে থাকছে অন্ধকার, মানে আজকের এই পোষ্টটিতে আমরা অন্ধকার কে নিয়ে আলোচনা করবো এবং এর গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় জানার চেষ্টা করবো। 

আমাদের পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষই অন্ধকারকে দেখে ভয় পায়, আর অন্ধকার কে দেখে ভয় পাওয়া-কে ক্লিপ্ট ফোবিয়া বলা হয়ে থাকে।

অন্ধকার এমন একটি জিনিস যেটা আমাদের সম্পূর্ণ ব্রহ্মান্ড (Universe)-এ ছড়িয়ে আছে। আমাদের ব্রহ্মান্ডের ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশই অন্ধকার।

অন্ধকার তখনই গায়েব হয়ে যায় যখন আলো চলে আসে, আবার আলো যখন চলে যায় তখন আবার ওই স্থানে অন্ধকার চলে আসে, এর পরেও আমাদের মধ্যে অনেক জিজ্ঞাসু লোক আছে যাদের মনে এমন প্রশ্নের উদয় হয় যে, অন্ধকারের গতি কত?

আমাদের এই সম্পুর্ণ ব্রহ্মাণ্ডে এমন কিছু নেই যেটা আলোর গতিকে অতিক্রম করতে পারে, মানে তিন লক্ষ কিলোমিটার প্রতি সেকেন্ড, তাহলে এখানে প্রশ্ন আসাটা স্বাভাবিক অন্ধকারের গতি কত হতে পারে। 

অন্ধকারের ভৌতিক রুপে কোন অস্তিত্ব নেই। অন্ধকারের মানেই হচ্ছে আলোর না হওয়া, মানে আলোর অভাব। যখনই আপনি আলোকে কোন ভাবে ব্লক করবেন তখন আপনি অন্ধকার-ই পাবেন, যেটাকে আমরা ছায়া বলে থাকি। যদি আমরা গতির হিসেবে কথা বলি তাহলে অন্ধকার ওটাই যেটা আলো আসা বন্ধ হয়ে গেলে পাওয়া যায়। যদি আমাদের সূর্য হঠাৎ করে আলো প্রদান করা বন্ধ করে দেয় তাহলে পৃথিবীতে আলো আসা বন্ধ হয়ে যাবে, আর পৃথিবীতে অন্ধকার ছেয়ে যাবে কিন্তু পৃথিবীতে সূর্যের আলো আসতে ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড সময় লাগে, এর মানে সূর্যের আলোর ছোট থেকে ছোট অংশ কেও গায়েব হয়ে যাওয়ার জন্য ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড সময় লাগবে, এরপর আলোর ছোট থেকে ছোট অংশ যাওয়ার পর অন্ধকারকে পৃথিবীতে আসতে ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড-ই সময় লাগবে, এর মানে আমরা পৃথিবীতে সূর্যকে ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড পর্যন্ত দেখতে পারবো না। 

অধিকাংশ বিজ্ঞানী এবং ভৌতিক শাস্ত্রী মনে করেন, অন্ধকারে কোন গতি নেই কারণ সেটা না নড়াচড়া করতে পারে, না স্থানান্তর হতে পারে। যদি আমরা অন্ধকারকে আলোর অভাব ভাবি, আর আলো নিয়ে অন্ধকারের পেছনে ছুটি তাহলে অন্ধকার ততটাই গতিতে গায়েব হয়ে যাবে যতটা গতিতে আলো আসবে, আর তাই এর মানে-তো এটাই বোঝা গেল যে অন্ধকার-ও আলোর গতিতে ট্রাভেল করতে পারে। 

আপনি অন্ধকারকে আলোর ছোট থেকে ছোট অংশ কে গায়েব হয়ে যাওয়ার পরেই কল্পনা করতে পারবেন। সত্যতা এটাই সম্পূর্ণ ব্রহ্মাণ্ড শুধু অন্ধকার, কিন্তু ব্রহ্মাণ্ডের কিছু জায়গায় কিছু বস্তু বা পিণ্ড আছে যার থেকে বের হওয়া আলো ওই অন্ধকারের স্থানকে নিয়ে নিয়েছে। ঐ বস্তু থেকে বের হওয়া আলো অন্ধকার-কে সরিয়ে আলোকিত করে দেয়। 

এখন যদি আবারও বলি অন্ধকারের গতির কথা, তাহলে বলব আমরা সবাই জানি অন্ধকার হচ্ছে আলোর অভাব। শুধুমাত্র আলোই অন্ধকারকে দূর করতে পারে, তো যত দ্রুত গতিতে আলো আসবে ঠিক ততটাই দ্রুতগতিতে অন্ধকার ও দূরে চলে যাবে। 

আমরা জানি যে, আমাদের এই পোষ্টটি পড়ার পর আপনাদের মনে অন্ধকার কে নিয়ে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে, সে সমস্ত প্রশ্নের মধ্যে এগুলো হতে পারে- 

অন্ধকার কি? 
অন্ধকার কি থেকে তৈরি? 
সত্যি কি অন্ধকারের কোন অস্তিত্ব নেই? 

এই সকল প্রশ্নের উত্তর আমাদের মনেও এসেছে কিন্তু অতি দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে যে, এই প্রশ্ন গুলোর সঠিক উত্তর বিজ্ঞানের কাছেও নেই কিন্তু আমরা এটা আশা করতে পারি যে, বিজ্ঞান আমাদের প্রশ্ন গুলোর উত্তর খুব শীঘ্রই দিবে। 

আমাদের আজকের আয়োজন আপনার কেমন লাগলো তা আমাদেরকে অবশ্যই জানাবেন, ধন্যবাদ।

No comments:

Powered by Blogger.