Loading...

Blog head ads

স্টিফেন হকিং (Stephen Hawking)

স্টিফেন হকিং, stephen hawking

স্টিফেন হকিং (Stephen Hawking) এর জন্ম ১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি যা আরেক বিখ্যাত বিজ্ঞানী গ্যালিলিও গলিলির ৩০০ তম মৃত্যুবাষিকী। 



স্টিফেন হকিং মাত্র ২১ বছর বয়সে দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হন। মুখের মাংসপেশী এবং হাতের কয়েকটি আঙ্গুল ছাড়া শরীরের আর কোনো অংশ নাড়াতে পারতেন না। তিনি চলাচল করতেন তার বিখ্যাত হুইল চেয়ারে। তিনি কথাও বলতেন কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত ভয়েস সিন্থেসাইজারের মাধ্যমে। 

স্টিফেন হকিং এর মোটর নিউরোন নামক রোগের কারণে চিকিৎসকরা তার সম্ভাব্য আয়ুকাল মাত্র দুই বছর বেঁধে দিয়েছিলেন। কিন্তু তার পরেও হকিং বেঁচে ছিলেন আরো অর্ধশত বছর এবং বিশ্ববাসীকে উপহার দিয়েছেন কসমোলজি সংক্রান্ত যুগান্তকারী সব ধারণা। স্টিফেন হকিং তার ব্ল্যাক হোল এবং আপেক্ষিক তত্ত্ব সম্পর্কিত গবেষনাকর্মের জন্যেও বিশ্ববিখ্যাত। তিনি আইনস্টাইনের আপেক্ষিকতার সাধারণ তত্ত্ব এবং কোয়ান্টাম মেকানিক্সকে একত্রিত করে প্রথমবারের মতো কসমোলজি তথা মহাবিশ্বের সৃষ্টিতত্ব ব্যাখ্যা করেন। 

স্টিফেন হকিং জনপ্রিয় বিজ্ঞান বিষয়ক একাধিক গ্রন্থেরও রচয়িতা। তার রচিত ‘এ ব্রিফ হিস্টোরি অফ টাইম’ বইটি ২৩৭ সপ্তাহ পর্যন্ত সানডে টাইমসের বেষ্ট সেলার ছিল। বইটির বিক্রয়সংখ্যা প্রায় ১ কোটিরও বেশি ছাড়িয়ে গেছে। 

২০১৪ সালে স্টিফেন হকিং এর বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয় ‘থিওরি অফ এভরিথিং’ চলচিত্র। তার চরিত্র রূপায়ন করে অভিনেতা এডি রেডমেইন শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে আস্কার লাভ করেন।

স্টিফেন হকিং নিঃসন্দেহে আমাদের সময়ের একজন অন্যতম শ্রেষ্ঠ, আলোচিত এবং প্রভাবশালী বিজ্ঞানী। তার বিজ্ঞানের অবদান, লেখা, বক্তব্য এবং প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধে সংগ্রাম অনুপ্রাণিত করেছে বিশ্বের কোটি কোটি বিজ্ঞান অনুরাগীকে। 

স্টিফেন হকিং ৭৬ বছর বয়সকালে ২০১৮ সালের ১৪ই মার্চ, মৃত্যু বরণ করেন যা বিজ্ঞানী আলবাট আইনস্টাইনের ১৩৯ তম জন্ম বার্ষিকী।

No comments:

Powered by Blogger.